মাধ্যমিক জীববিজ্ঞান সৃজনশীল প্রশ্ন (SSC Biology CQ)


প্রথম অধ্যায়: জীবন পাঠ


(ক) জ্ঞানমূলক প্রশ্ন :


১। জীববৈচিত্র্য কাকে বলে? [রাজশাহী বোর্ড, ২০১৫]
২। ICZN কী? [দিনাজপুর বোর্ড, ২০১৫]
৩। ধানের বৈজ্ঞানিক নাম কী? [কুমিল্লা বোর্ড, ২০১৫]
৪। শ্রেণিবিন্যাসের ধাপগুলো উল্লেখ কর।
৫। দ্বি-পদ নামকরণ পদ্ধতি কী?
৬। কাঁঠাল এর দ্বি-পদ নাম কী?
৭। ICBN এর পূর্ণরূপ লিখ।
৮। শ্রেণিন্যাসের একক কী?
৯। প্রজাতি কী?
১০। জীববিজ্ঞানের ফলিত শাখাগুলোর নাম লিখ।
১১। জীববিজ্ঞানের ভৌত শাখাগুলোর নাম লেখ।
১২। জীববিজ্ঞান শিক্ষার গুরুত্ব কী?
১৩। ম্যালেরিয়া জীবাণুর বৈজ্ঞানিক নাম কী?
১৪। কনজুগেশন কী?
১৫। ICZN এর পূর্ণরূপ লিখ।
১৬। অ্যানাইসোগ্যামাস কী?
১৭। শ্রেণিবিন্যাসের সর্বনিম্ন একক কী?
১৮। হেটারোট্রফিক পুষ্টি কী?

(খ) অনুধাবনমূলক প্রশ্ন :


১। দ্বিপদ নামকরণ বলতে কী বুঝায়? [কুমিল্লা বোর্ড, ২০১৫]
২। জীবের শ্রেণিবিন্যাসের ধাপ গুলো কি কি?
৩। বংশগতিবিদ্যা শাখায় কি নিয়ে আলোচনা করা হয়?
৪। শ্রেণিবিন্যাসের উদ্দেশ্য সম্পর্কে লিখ।
৫। দ্বিপদ নামকরণ বলতে কী বুঝায় ব্যাখ্যা কর।
৬। কেন ছত্রাক খাদ্য উৎপাদন করতে পারে না?
৭। বংশগতিবিদ্যাকে জীববিজ্ঞানের ভৌত শাখা বলা হয় কেন?
৮। লিনিয়াস প্রবর্তিত নামকরনের পদ্ধতিগুলো কী কী?
৯। ICBN বলতে কি বুঝায়? ব্যাখ্যা কর।
১০। প্রোক্যারিওটা ও ইউক্যারিওটার দুটি পার্থক্য লেখ।
১১। ব্যাকটেরিয়াকে মনেরা রাজ্যের অর্ন্তভূক্ত করা হয়েছে কেন?
১২। জীবে শ্রেণিবিন্যাসের প্রয়োজন কেন?
১৩। “Species plantarum” বইটি জীববিজ্ঞানের জন্য এত গুরুত্বপূর্ণ কেন?

(গ) ও (ঘ) প্রয়োগ ও উচ্চতর দক্ষতামূলক প্রশ্ন :


১। নিচের উদ্দীপকটি লক্ষ্য এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও: [কুমিল্লা বোর্ড, ২০১৫]



(গ) চিত্র-P জীববিজ্ঞানের কোন শাখার অন্তর্ভূক্ত, কারণসহ ব্যাখ্যা কর। ৩
(ঘ) চিত্র-Q কেন অ্যানিমেলিয়া রাজ্যে অন্তর্ভূক্ত হয়নি? যুক্তিসহ বিশ্লেষণ কর। ৪

২। নিচের উদ্দীপকটি পড় এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাওঃ-[দিনাজপুর বোর্ড, ২০১৫]

জীববিজ্ঞান শিক্ষক মি. হক তার ছাত্রদের নিয়ে বিদ্যালয়ের চারপাশে গাছগুলো পর্যবেক্ষণ করলেন। পরবর্তীতে তিনি নানা রকম গাছ দেখিয়ে একটি বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করলেন যার জনক বিজ্ঞানী ক্যারোলাস লিনিয়াস। অবশেষে তিনি উক্ত বিজ্ঞানীর প্রবর্তিত নামকরণ পদ্ধতির নিয়মাবলি আলোচনা করলেন।
(গ) শিক্ষকের আলোচিত মূল বিষয়বস্তুর উদ্দেশ্য বর্ণনা কর। ৩
(ঘ) মানুষের নামকরণের ক্ষেত্রে উদ্দীপকে উল্লেখিত বিজ্ঞানীর উদ্ভাবনকৃত পদ্ধতির প্রতিফলন ঘটেছে কি-না? বিশ্লেষণ কর। ৪

৩। নিচের উদ্দীপকটি পড় এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :


সুইডিশ বিজ্ঞানী ক্যারোলাস লিনিয়াস সর্বপ্রথম জীবজগৎ এর শ্রেণিবিন্যাস করেন। ১৯৬৯ সালে একজন বিজ্ঞানী সমগ্র জীবজগৎকে পাঁচটি রাজ্য বা কিংডমে ভাগ করেন। পরবর্তীতে ১৯৭৪ সালে অপর একজন বিজ্ঞানী সমগ্র জীব জগৎকে পাঁচটি জগৎ ও দুইটি সুপার কিংডমে ভাগ করেন। এ শ্রেণিবিন্যাসটিই জীব জগৎ এর আধুনিক শ্রেণিবিন্যাস।
(গ) উদ্দীপকে আলোচিত সর্বশেষ বিজ্ঞানীর শ্রেণিবিন্যাসটির ১টি বৈশিষ্ট্য ও ১টি উদাহরণ উপস্থাপন কর।
(ঘ) আলোচিত সর্বশেষ শ্রেণিবিন্যাসটিকে আধুনিক শ্রেণিবিন্যাস বলার কারণ বিশ্লেষণ কর।

৪। নিচের উদ্দীপকটি পড় এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :


জীববিজ্ঞান ক্লাসে ফারুক স্যার জীবের শ্রেণিবিন্যাস সম্পর্কে পড়াচ্ছিলেন। তিনি বললেন এ পৃথিবীর সমস্ত উদ্ভিদ ও প্রাণী সম্পর্কে কারো একার পক্ষে জানা সম্ভব নয়। সে কারণে বিজ্ঞানীরা এদেরকে বিভিন্ন দলে ও উপদলে বিন্যস্ত করেছেন। তিনি আরো বলেন, সুইডিস বিজ্ঞানী ক্যারোলাস লিনিয়াস তাঁর 'System Nature' গ্রন্থের ১০ম সংস্করণে জীবের দ্বিপদ নামকরণ নীতি প্রবর্তন করেন এবং গণ ও প্রজাতির সংজ্ঞা দেন।
(গ) ফারুক স্যার যে বিষয় সম্পর্কে পড়াচ্ছিলেন তার প্রয়োজনীয়তা লিখ।
(ঘ) উদ্দীপকে উল্লেখিত নামকরণ এর নিয়মাবলী সম্পর্কে আলোচনা কর।

৫। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) চিত্র P ও চিত্র Q-এর উদ্ভিদ দুটির মধ্যে কী কী সাদৃশ্য পরিলক্ষিত হয়?
(ঘ) বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে চিত্র P ও Q-এর গুরুত্ব বিশ্লেষণ কর।

৬। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) চিত্র-২ এর উদ্ভিদটির নামকরণের ক্ষেত্রে কীভাবে তুমি ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে ব্যাখ্যা কর।
(ঘ) চিত্র-১ এবং চিত্র-২ এর মধ্যে কোন জীবটি অধিক উন্নত, কারণসহ বিশ্লেষণ কর।

৭। নিচের উদ্দীপকটি পর্যবেক্ষণ কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও:



(গ) উদ্দীপকের জীবগুলোকে শ্রেণিবিন্যস্ত করার প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা কর।
(ঘ) B ও C চিত্রের জীবকে ভিন্ন ভিন্ন রাজ্যভুক্ত করার কারণ বিশ্লেষণ কর।



৮। নিচের উদ্দীপকটি পর্যবেক্ষণ কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও:



(গ) চিত্র- A এবং চিত্র- B এর জীব দুটি আলাদা রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত কেন? ব্যাখ্যা কর। ৩
(ঘ) উদ্দীপকে উল্লেখিত জীব দুটির মধ্যে কোনটি উন্নত এবং কেন? বিশ্লেষণ কর। ৪

৯। নিচের উদ্দীপকটি পর্যবেক্ষণ কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও:



(গ) চিত্রের জীবটি যে রাজ্যের তার বৈশিষ্ট্য উল্লেখ কর। ৩
(ঘ) উদ্দীপকের জীবটির ছোট থেকে বড় হওয়ার পেছনে যে কোষ বিভাজনের ভূমিকা রয়েছে তা সমগ্র জীবজগতের জন্য কতটা গুরুত্ব বহন করে? বিশ্লেষণ কর। ৪

১০। নিচের উদ্দীপকটি পড় এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :


নয়ন পুকুর পাড়ে বসে কয়েকটি ব্যাঙ দেখতে পেল। এছাড়া পুকুরে কিছু শাপলা এবং পুকুর পাড়ে কিছু ব্যাঙের ছাতা দেখতে পেয়ে ভাবল প্রকৃতিতে কত না বিচিত্র জীবের সমাবেশ ঘটেছে। সে চিন্তা করল, এই কারণে জীবগুলো শ্রেণিবিন্যাসে ভিন্ন ভিন্ন অবস্থানে থাকে।
(গ) নয়নের দেখা স্বভোজী জীবটির রাজ্যগত বৈশিষ্ট্য ব্যাখ্যা কর। ৩
(ঘ) উদ্দীপকে উল্লেখিত ১ম ও ৩য় জীবটির শ্রেণি বিন্যাসগত অবস্থান ভিন্ন-বিশ্লেষণ কর। ৪

১১। নিচের উদ্দীপকটি পড় এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :


উচ্চ শ্রেণীর জীবদেহের দেহকোষে এক ধরনের কোষ বিভাজন হয়। উক্ত কোষ বিভাজনের একটি ধাপে সেন্ট্রোমিয়ার মেরুর দিকে চলতে শুরু করে। ফলশ্রুতিতে একটি ক্রোমোজম থেকে দুইটি অপত্য ক্রোমোজোম সৃষ্টি হয়।
(গ) উদ্দীপকে উল্লেখিত ধাপটির সচিত্র বর্ণনা দাও। ৩
(ঘ) উল্লেখিত প্রক্রিয়াটির সাথে জীবদেহের জননকোষে সংঘটিত প্রক্রিয়ার তুলনামূলক বিশ্লেষণ কর। ৪

১২। নিচের উদ্দীপকটি পড় এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :


অসংখ্য জীব নিয়ে জীব জগৎ গঠিত। অধিক সংখ্যক জীব সম্পর্কে অল্প সময়ে জানার জন্য নিয়মতান্ত্রিকভাবে এদের শ্রেণিবিন্যাস ও নামকরণ করা হয়েছে এবং পরবর্তীতে ICZN দ্বিপদ নামকরণের জন্য সুনির্দিষ্ট নিয়ম প্রবর্তন করে।
(গ) শ্রেণিবিন্যাসের ধাপগুলো লেখ। ৩
(ঘ) ICZN প্রণীত নিয়মগুলো প্রবর্তন অপরিহার্য -বিশ্লেষণ কর। ৪

১৩। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) ‘চ’ চিত্রের জীবটি মারগুলিসের শ্রেণীবিন্যাসের কোন জগতের অন্তর্ভুক্ত, কারণসহ ব্যাখ্যা কর। ৩
(ঘ) ‘ছ’ চিত্রের জীবটি কেন Animalia তে অন্তর্ভুক্ত করা হয় নি? যুক্তিসহ বিশ্লেষণ কর। ৪

১৪। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) A এর সাথে B এর কি ধরনের সম্পর্ক রয়েছে বর্ণনা করো। ৩
(ঘ) B জীবকে ইউক্যারিওটাতে অর্ন্তভুক্ত না করার কারণ- ব্যাখ্যা করো। ৪

১৫। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) শ্রেণিবিন্যাসে P জীবটির রাজ্যগত বৈশিষ্ট্য বর্ণনা কর। ৩
(ঘ) “সুপার কিংডম ও রাজ্য এ দুদিক থেকেই Q ও R এর অবস্থান ভিন্ন” – বিশ্লেষণ কর।৪

১৬। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) ‘চিত্র-ক’ জীবজগতের কোন শাখার অর্ন্তভুক্ত এবং কেন? ব্যাখ্যা কর। ৩
(ঘ) ‘চিত্র-খ’ কেন অ্যানিমেলিয়া রাজ্যে অর্ন্তভুক্ত হয়নি? বিশ্লেষণ কর। ৪

১৭। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) ত্রি ‘A’ যে রাজ্যের অর্ন্তভুক্ত উক্ত রাজ্যের বৈশিষ্ট্য উল্লেখ কর। ৩
(ঘ) উক্ত জীবদ্বয়ের মধ্যে কোনটি অর্থনৈতিকভাবে বেশি গুরুত্বপূর্ণ যুক্তিসহ বিশ্লেষণ কর। ৪

১৮। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) Margulis এর শ্রেণিবিন্যাস অনুযায়ী ‘A’ জীবটির অবস্থান ব্যাখ্যা কর। ৩
(ঘ) উদ্দীপকের জীবটির নামকরণের ক্ষেত্রে তুমি কী কী নিয়ম মেনে চলবে- বিশ্লেষণ কর। ৪

১৯। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) শ্রেণিবিন্যাসে ‘A’ জীবটির রাজ্যগত বৈশিষ্ট্য কী হতে পারে ব্যাখ্যা কর। ৩
(ঘ) মানবজীবনে চিত্র A ও B এর উপকারী ও অপকারী ভূমিকা বিশ্লেষণ কর। ৪

২০। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) চিত্র ‘খ’ জীববিজ্ঞানের কোন শাখার অর্ন্তভুক্ত? কারণসহ ব্যাখ্যা কর। ৩
(ঘ) চিত্র ‘ক’ কেন অ্যানিমেলিয়া রাজ্যের অর্ন্তভুক্ত হয়নি? বিশ্লেষণ কর। ৪

২১। নিচের চিত্রটি লক্ষ্য কর এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।



(গ) ‘X’ জীবটির কোষীয় বৈশিষ্ট্য বর্ণনা কর। ৩
(ঘ) শ্রেণিবিন্যাসের ছকের কোন জীবটির রাজ্য অধিকতর বৈচিত্র্যময় –বিশ্লেষণ কর। ৪