উচ্চ মাধ্যমিক জীববিজ্ঞান প্রথম পত্র সিলেবাস (HSC Biology 1st Paper Syllabus)


দ্বাদশ অধ্যায় : জীবের পরিবেশ,বিস্তার ও সংরক্ষণ ( ১৮ পিরিয়ড )


বিষয়বস্তু
১। প্রজাতি, জীবগোষ্ঠী, জীবসম্প্রদায়
২। ইকোলজিক্যাল পিরামিড ও প্রকারভেদ
৩। জীবের অভিযোজনড় ৩.১ জলজ ৩.২ মরুজ ও ৩.৩ লবণাক্ত পরিবেশে অভিযোজন
৪। বায়োম
৫। প্রাণিভৌগোলিক অঞ্চল ৫.১ ওরিয়েন্টাল অঞ্চল
৬। বাংলাদেশের বনাঞ্চল ৬.১ জীববৈচিত্র্য
৭। উপকূলীয় বনাঞ্চল ও সবুজ বেষ্টনী ৭.১ বনাঞ্চল উপযোগী উদ্ভিদের বৈশিষ্ট্য
৮। বিলুপ্তপ্রায় জীবের পরিচিতি ৮.১ বিলুপ্তপ্রায় উদ্ভিদ ৮.২ বিলুপ্তপ্রায় প্রাণী
৯। জীববৈচিত্র্য সংরক্ষন পদ্ধতি-
৯.১ In situ conservation- ৯.১.১ উদ্ভিদ উদ্যান ৯.১.২ অভয়ারণ্য ৯.১.৩ মৎস্য অভয়াশ্রম
৯.২ Ex situ conservation - ৯.২.১ নিম্ন তাপমাত্রা ৯.২.২ তরল নাইট্রোজেন

শিখনফল
১। প্রজাতি, জীবগোষ্ঠী ও জীবসম্প্রদায় ব্যাখ্যা করতে পারবে।
২। ইকোলজিক্যাল পিরামিডের প্রকারভেদ চিত্রসহ ব্যাখ্যা করতে পারবে।
৩। বিভিন্ন প্রকার পিরামিডের মধ্যে তুলনা করতে পারবে।
৪। জলজ, মরুজ ও লবণাক্ত পরিবেশে জীবের অভিযোজন প্রক্রিয়ার তুলনা করতে পারবে।
৫। বিভিন্ন ধরনের বায়োম সম্পর্কে বর্ণনা করতে পারবে।
৬। প্রাণিভৌগোলিক অঞ্চলসমূহ এর ধারণা ব্যাখ্যা করতে পারবে।
৭। ওরিয়েন্টাল অঞ্চলের উদ্ভিদ ও প্রাণীর বিস্তার বর্ণনা করতে পারবে।
৮। বাংলাদেশের বিভিন্ন বনাঞ্চলের বৈশিষ্ট্য বর্ণনা করতে পারবে।
৯। বিভিন্ন বনাঞ্চলের উল্লেখযোগ্য উদ্ভিদ ও প্রাণীর নাম উল্লেখ করতে পারবে।
১০। উপকূলীয় বনাঞ্চল উপযোগী উদ্ভিদের বৈশিষ্ট্য বর্ণনা করতে পারবে।
১১। উপকূলীয় এলাকায় বনাঞ্চল তৈরির প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করতে পারবে।
১২। বিলুপ্তপ্রায় জীব সম্পর্কে ব্যাখ্যা করতে পারবে।
১৩। জীব বিলুপ্তির কারণ ব্যাখ্যা করতে পারবে।
১৪। বিলুপ্তপ্রায় জীব সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করতে পারবে।
১৫। জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ পদ্ধতি বর্ণনা করতে পারবে।
১৬। জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের গুরুত্ব উপলব্ধি করতে পারবে।
১৭। বিলুপ্ত প্রায় জীবের সংরক্ষণের বিষয়ে নিজে সচেতন হবে এবং অন্যকেও সচেতন করবে।